Site icon মুক্তির কণ্ঠ । Muktir Kantho

গোয়াইনঘাটে ভাঙ্গা রাস্তায় বাঁশের সাঁকো দিলেন স্থানীয় যুবকরা। মুক্তির কণ্ঠ

 

সৈয়দ শামীম, গোয়াইনঘাট থেকে সিলেট। মুক্তির কণ্ঠ
সিলেটের গোয়াইনঘাটে একটি রাস্তা’র ভাঙ্গনে কয়েকটি গ্রামের দূর্ভোগের যেন কোন শেষ নেই । আর সেটি হচ্ছে সিলেটের গোয়াইনঘাটের ৩নং পুর্ব জাফলং ইউনিয়নের ছৈলাখেল রাস্তা সহ সানকী ভাঙ্গা গ্রামের রাস্তা।

ভারতের মেঘালয় রাজ্যের উঁচু পাহাড় থেকে প্রবাহিত পিয়াইন নদী হয়ে পানি নিচু এলাকাতে নামে। বন্যার পানিতে অতি শ্রুত থাকায় গ্রামের রাস্তা ঘাট ভেঙ্গেচুরে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।বন্যার পর প্রায় ২ মাস চলে যাওয়ার পরও কোনরকম সংস্কার করা হয়নি।

ভাঙ্গা রাস্তার উপর বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করেন সানকী ভাঙ্গা গ্রামের কয়েক জন যুবক। ওই রাস্তায় বাঁশের সাঁকো দিয়ে জীবনের ঝুকি নিয়ে কয়েকটি গ্রামের শতাধিক ছাত্র-ছাত্রী মাদ্রাসা, হাজী সোহরাব আলী স্কুএ এন্ড কলেজে আসা যাওয়া করে থাকেন। এছাড়াও গর্ভবতী মহিলা, বৃদ্ধ ও অসুস্থ রোগীদরকে উপজেলা সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতাল নিয়ে যাওয়া-আসার একমাত্র রাস্তা হল এ ছৈলাখেল সহ সানকী ভাঙ্গা গ্রামের রাস্তা।,

তাই একমাত্র এই ভাঙ্গা রাস্তার কারণে উপজেলার ১০ থেকে ১২টি গ্রামের অন্তত ২০ হাজার মানুষের যাতায়াতে দুর্ভোগের শেষ নেই। সানকী ভাঙ্গা গ্রামের বাসিন্ধারা জানান প্রতিদিন আমরা এই বাঁশের সাঁকোর উপর দিয়ে ঝু্ঁকি নিয়ে যাতায়াত করছি। মুমূর্ষু রোগীকে সময়মত হাসপাতালে নেয়া সম্ভব হয়না। আমরা বড় কষ্টে আছি। তাই দ্রুত এই রাস্তাটি নির্মাণের দাবী জানাই।

এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা সহর আলী জানান, রাস্তাটির জন্য প্রায় ২মাস ধরে ভুক্তভোগী মানুষ কষ্ট করে আসছে। কিন্তু নির্মাণের কোন কার্যকর উদ্যোগ চোখে পড়ছেনা এবং রাস্তাটির দ্রুত সংস্কারের দাবী জানান তিনি। এই রাস্তাটির জন্য কয়েক হাজার মানুষকে দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সানকী ভাঙ্গা গ্রামের আরো অনেকেই জানান রাস্তাটি ভেঙ্গে যাওয়ার কারনে কয়েকটি গ্রামের মানুষ চলাচলে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। এলাকাবাসী সহ সকল শ্রেনীর মানুষের একই দাবী রাস্তাটি অতি জরুরি সংস্কার করা হলে এলাকার ছাত্র-ছাত্রীসহ সকল মানুষের আগের প্রাণ ফিরে পাবে বলে জানান।

Exit mobile version